Articles & Blog

Mother Teresa

Sharing is caring!

#motherteresa

শুভ জন্মদিন মাদার তেরেসা*

মাদার টেরিজার জন্ম হয় যুগোস্লাভিয়ার স্কপিয়ে শহরে, ১৯১০ খ্রিস্টাব্দের 26 আগস্ট।

মাদার হাউসঃ ১৯৪৮ খ্রিস্টাব্দে পোপের অনুমতি নিয়ে তিনি ১৪ নং ক্রিক লেনের একটি ছোটো ঘরকে কেন্দ্র করে মানব সেবার কাজ পূর্ণোদ্যমে শুরু করেন। ১৯৫০ খ্রিস্টাব্দের ৭ই অক্টোবর প্রতিষ্ঠা করেন ‘মিশনারিজ অব চ্যারিটি’। লোয়ার সার্কুলার রোডে প্রতিষ্ঠা করেন চ্যারিটি নামক সংস্থা।
সেবা কেন্দ্রঃ প্রায় শূণ্য হাতে মাত্র ১০ জন সহযোগিনীকে নিয়ে মাদার সেবার কাজ শুরু করেছিলেন। মাদার হাউসের পাসেই গড়ে তোলেন ‘শিশুভবন’, পরিত্যক্ত, অনাথ শিশুরা আশ্রয় পায় সেখানে। কালীঘাটে প্রতিষ্ঠিত ‘নির্মল হৃদয়’ কুষ্ঠ রোগীদের পরম ঠাঁই। টিটাগড়, আসানসোল, দিল্লিতে গড়ে তোলেন কুষ্ঠ রোগীদের জন্য আশ্রম। ভারতের বাইরে আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া, জাপান, রাশিয়া, পোল্যান্ড, যুগোস্লাভিয়ায় প্রতিষ্ঠিত হয়েছে তাঁর সেবাকেন্দ্র। সারা বিশ্বে ছড়িয়ে আছে ৪৭০টির বেশি সেবা প্রতিষ্ঠান। ভাষাহীন মানুষের চেতনায় ঞ্জানের আলো দিতে গড়েছেন ১২৪টি স্কুল। রোগীর চিকিৎসার জন্য প্রতিষ্ঠা করেন ২২০টি দাতব্য চিকিৎসালয়।

পৃথিবীর সকলের মা উনি মাদার।

মাদার টেরিজার কুষ্টি বিচার করলে প্রথমেই আমাদের চোখে পরে শনি চন্দ্র যোগ যাহা পঞ্চম ভাবে অবস্থিত। এই শনি চন্দ্র যোগ অনেকে বিষযোগ বলেন কিন্তু এই শনি চন্দ্র যোগ পৃথিবীর যত বড় মনীষীরা আছেন অথবা যারা মানুষের জন্য প্রচুর চিন্তাভাবনা করেন মানুষের দুঃখে দুঃখী হয় যাদের মন দুঃখে-কষ্টে অপরের জন্য চিন্তা ভাবনা করেন সেই সকল মানুষের কুষ্টিতে এই শনি চন্দ্র যোগ খুঁজে পাওয়া যায় ঠিক একইভাবে মাদারটেরেজা পঞ্চম ভাবে শনি চন্দ্র যোগ সৃষ্টি হয়েছে। স্বামী বিবেকানন্দের ও এই শনি চন্দ্র যোগ ছিল।

দ্বাদশে কেতু হাইলি স্পিরিচুয়াল যোগ। জ্যোতিষ শাস্ত্রে বলা হয় যাদের দ্বাদশ ভাবে কেতুর অবস্থান তাদের এটাই শেষ জীবন অথবা বারবার মানুষ জন্মগ্রহণ করে তাদের কষ্ট পেতে হয় না। তবে আমি বাস্তবে এমন কোনো ঘটনার সম্মুখীন হইনি যে দ্বাদশে কেতুর অবস্থান রয়েছে সেই মানুষটি আর জন্মগ্রহণ করেননি কারণ আমি ঈশ্বর নই তবে বিভিন্ন বইতে যা লেখা আছে তাই বললাম।
যোগী আদিত্যনাথ এর কুষ্টি দেখলে তার দ্বাদশে এই কেতুর অবস্থান আছে। দ্বাদশ ভাবে রাহু কেতুর অবস্থান স্পিরিচুয়াল মানুষের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

আরো একটা যোগ সম্পর্কে জ্যোতিষ শাস্ত্রে আলোচনা করা হয় যদি পঞ্চম ভাব বা পঞ্চম পতির সাথে নবম ভাগ বা নবম পতি সংযোগ সৃষ্টি হয় পঞ্চম বা নবম ভাবে তাহলে জাতক বা জাতিকা প্রচন্ড বুদ্ধিমান চিন্তাশীল ধার্মিক এবং আধ্যাত্মিক চিন্তাভাবনার মনোভাবাপন্ন মানুষ হন মাদারটেরেজা কুষ্টি বিচার করলে দেখা যাচ্ছে পঞ্চম পতি মঙ্গল নবম পতি রবির সাথে নবম স্থানে সহাবস্থান এখানে পঞ্চম এবং নবম ভাবের মিলন ঘটেছে যাহা মাদার টেরিজা কে আধ্যাত্মিক এবং ধার্মিক পথে এগিয়ে যেতে সাহায্য করেছে।

প্রথম আধ্যাত্মিক যোগ শনি চন্দ্রের।
দ্বিতীয় আধ্যাত্মিক যোগ দ্বাদশে কেতু অবস্থান।
তৃতীয় আধ্যাত্মিক যোগ নবম ভাবে অবস্থান মঙ্গল এবং রবির নবম এবং পঞ্চম ভাবের মেলবন্ধন।

মাদার টেরিজার জীবনী এবং তার জীবনের কর্মকাণ্ড সম্পর্কে নতুন করে কিছু বলার নেই পৃথিবীর সকল মানুষ তাহার সম্পর্কে খুব ভালোভাবে অবগত তাই নতুন করে তার সম্পর্কে কিছু লেখার আমার নেই। পৃথিবীর প্রতিটা মানুষ ওনাকে মা বলেই জানবেন সত্যিই উনি আমাদের সকলের মা।

#motherteresa

সম্রাট বোস
7890023700

samrat bose

Even after bagging all such degrees astrologer Samrat Bose still doing a vigorous research on “Astro Bastu” presen

https://www.samratastrology.com

Leave a Reply

Back To Top
shares